৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

ধর্মকারীর কুফরী কিতাব - ২৪: ইসলামি পাটিগণিত

গ্যান ও বিগ্যানের প্রতিটি শাখার ভিত্তি কোরান - এ কথা কে না জানে! তো পাটিগণিত নামের সরলতম বিজ্ঞানে সর্বজ্ঞ আল্যার তথা ইছলামের নবীর গ্যানের গভীরতা ও পরিধি খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে যাচাই করেছেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ইছলাম-গবেষক আবুল কাশেম। কোরানের মতো ভুলভ্রান্তিহীন নিখুঁত কিতাবে তিনি আবিষ্কার করেছেন পাটিগণিত সংক্রান্ত অগণ্য প্রমাদ, গলদ ও অসঙ্গতি। বইটির সূচনায় তিনি লিখেছেন:
ইসলামী পণ্ডিতেরা এবং ইসলামী ঐতিহাসিকেরা সর্বদাই প্রচার করে চলেছেন যে, বিশ্বকে অঙ্কশাস্ত্র বিশেষত বীজগণিত উপহার দিয়েছে ইসলাম। ভাব-সাব এমন, যেন ইসলামের পূর্বে বিশ্বে অঙ্কশাস্ত্রের প্রচলন ছিল না। কিন্তু সত্য হল, সংখ্যাতত্ত্ব বিশেষত আধুনিক দশমিক সংখ্যা তথ্যের উদ্ভব করেছে হিন্দুরা—ভারতবর্ষেই। পরে আরবেরা এই সংখ্যাতত্ত্ব অবলম্বন করে এবং ধীরে ধীরে তা বিশ্বের নানা অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়ে।
এই রচনায় আমরা দেখব, ইসলামের উৎস, তথা কোরান এবং হাদিসগুলোতে কীভাবে পাটিগণিতের ব্যবহার করা হয়েছে।
সর্বমোট সাতটি অধ্যায় রয়েছে এতে: ১. আল্লাহ্‌র পরিসংখ্যান তথ্য, ২. সৃষ্টি-সংখ্যায় বিভ্রান্তি, ৩. ইসলামী বর্ষপঞ্জী বা ক্যালেণ্ডার, ৪. নামায এবং পাপের গণনা, ৫. আল্লাহ্‌র সুদ কষা, ৬. কোরানের ভগ্নাংশ, ৭. ইসলামিক উত্তরাধিকার সম্পত্তি বণ্টনের হিসাব।

এই ইবুক নির্মাণ করেছেন নরসুন্দর মানুষ। তাঁকে আলাদা করে ধন্যবাদ দেয়ার কিছু নেই। ধর্মকারী-পরিবারের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে পড়েছেন তিনি। অতএব এই জাতীয় কাজ করা তাঁর ঈমানী দায়িত্বের ভেতরেই পড়ে। তবে অপূর্ব প্রচ্ছদটির পেছনে "কবি" নামের কামেল যে-শিল্পীর অবদান রয়েছে, তাঁকে মারহাবা জানাতেই হয়।

ফরম্যাট: পিডিএফ
সাইজ: ১.২ মেগাবাইট
ডাউনলোড লিংক (গুগল ড্রাইভ): https://goo.gl/kJcHwq
ডাউনলোড লিংক (ড্রপবক্স): https://goo.gl/nMIdtn

অনলাইনে পাঠযোগ্য ভার্শনও এমবেড করা হলো নিচে: