১৭ আগস্ট, ২০১৬

দশফোঁড়ন

১. কিরগিজস্তানের জনসংখ্যার ৮০ শতাংশ মুছলিম। তো সেই দেশের প্রেসিডেন্ট এ ধরনের বেশরিয়তী এক কথা বলেন কোন সাহসে: "মিনি স্কার্ট পরা মেয়েরা আত্মঘাতী বোমারু হয় না।"?

২. ধর্মহীন পিতামাতার সঙ্গে শিশুদের বাস করা রহিত করতে কট্টরপন্থী ইতর ইহুদিরা এক মিলিয়ন পাউন্ডের তহবিল সংগ্রহে নেমেছে। প্রার্থনা করে কোনও ফলই যেহেতু হয় না, তাই টাকা নামের ঈশ্বরের শরণ নেয়া!

৩. পুতিনের প্রত্যক্ষ প্রশ্রয়পুষ্ট রুশ অর্থোডক্স চার্চের উচ্চপদাসীন ধর্মযাজক দিয়েছে এক শান্তির বাণী: "অভ্যন্তরীণ শত্রুদেরকে হত্যা করা যায় এবং হত্যা করাই উচিত।

৪. অমুছলিম গৃহপরিচারিকা মুছলিম শিশুদের ঈমানের জন্য হানিকর হতে পারে ধারণা করে মালয়েশিয়ায় মুছলিম পরিবারে অমুছলিম গৃহপরিচারিকার কাজ করা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। 

৫. চার্চের ভেতরে স্বামী-স্ত্রী যখন প্রার্থনা করছিল, তখন চার্চের বাইরে রাখা তাদের গাড়ির ভেতরে তাদের তিন বছর বয়সের শিশু অত্যধিক গরমের কারণে মৃত্যুবরণ করেছে। ঈশ্বর বড়োই করুণাময়।

৬. এক বালিকাকে শুইয়ে দিয়ে তার বুক ও পেটের ওপরে অতিকায় ও ভারী এক স্পিকার রেখে তার ওপরে চড়ে বসে অলৌকিক ক্ষমতার অধিকারী বলে দাবিদার এক ধর্মযাজক এবং ঘোষণা করে, মেয়েটি কোনও ব্যথাই অনুভব করবে না। কিন্তু মেয়েটি মারা যায়। তখন ধর্মযাজক বলে, ঈমান দুর্বল ছিলো মেয়েটির। হ্যাঁ, এবং ধর্মযাজকের যুক্তি ছিলো সবল।

৭. বাইবেল পাঠ করে ও প্রার্থনা করে যৌনতা রোধ করতে ব্যর্থ উচ্চপদস্থ এক ক্যাথলিক ধর্মযাজক তার যৌনতাবঞ্চিত পুরুষাঙ্গের ছবি তুলে পাঠিয়েছিল আরেক পুরুষকে। 

৮. চোরের সাক্ষী গাঁটকাটা। যুদ্ধ, সন্ত্রাস, হত্যা, ধর্ষণের আহ্বান জানানো ও তার বাস্তব প্রতিফলন ঘটানো ধর্ম ইছলাম "সন্ত্রাসের ধর্ম নয় বলে" সার্টিফিকেট দিয়েছে মধ্যযুগে স্প্যানিশ ইনকুইজিশন নামের অমানবিক তাণ্ডব চালানো ধর্মের প্রধান পোপ, যে কিনা একই সঙ্গে বিশ্বে শিশুকামীদের বৃহত্তম সংগঠন ক্যাথলিক চার্চের প্রধানও। তবে শিশুধর্ষকেরা এই চার্চে কখনওসখনও শাস্তি ভোগও করে অবশ্য। এই যেমন, কমপক্ষে ২০ জন শিশুর ধর্ষক ধর্মযাজককে চার্চ দিয়েছে কঠোর শাস্তি - তাকে প্রার্থনা করতে হবে।

৯. "চিকিৎসাবিজ্ঞান ও ঔষধপ্রস্তুতবিদ্যা শয়তানের সৃষ্টি," বলেছে বিশ্বাসনির্ভর "চিকিৎসা"প্রয়োগকারী এক ধর্মবাজ।

১০. আল্যা ও শয়তান সব সময়ই জুটি হিসেবে কাজ করে। আমেরিকার আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও এই দু'জন প্রবলভাবে সক্রিয় এবং তারা দু'জনেই ট্রাম্পের বিরোধী। মুছলিমের দাবি: ট্রাম্পের মতো লোকদের সুনামহানি করার জন্য আল্যা তাদের বাধ্য করে ভুল করতে। ওদিকে এক খ্রিষ্টান "নবী"-র দাবি: ট্রাম্পের ব্যাপারে মিথ্যে কথা বলতে উদারপন্থীদের উদ্বুদ্ধ করে শয়তান।