২৯ জুলাই, ২০১৬

ধর্মের চিড়িয়াখানায় - ৭

লিখেছেন ধর্মহীন জিরাফ

৩১.
মহামতি আইনস্টাইন নিজের টেলিফোন নাম্বারটাও মনে রাখতেন না। বললে বলতেন, যে-জিনিসটা লেখা আছে, সেটা মূখস্থ করার দরকার কী? আর ডঃ জাকির নায়েক শ্লোকের পর শ্লোক মুখস্থ বলে যায় চোখ-কান বন্ধ করে।

পার্থক্যটা বুঝতে পারছেন?

৩২.
মানবতাকে ফার্মেন্টেশন করলে তা ধর্মে রূপ নেয়।

৩৩.
ধর্মগুলো মানুষকে 'মানবিক ঈশ্বর' দিতে পারেনি। তারা মানুষকে দিয়েছে এমন এক ঈশ্বর, যে ক্ষুধার্ত মানুষের ক্ষুধাযন্ত্রণা দ্যাখে নীরব দর্শক হয়ে, ধর্ষিতার চিৎকার যে শোনে ভাবলেশহীনভাবে - এসব তুচ্ছ মানবিক অনুভূতি তাকে স্পর্শ করে না।

এই ঈশ্বরে আমি আস্থা রাখতে পারি না।

৩৪.
কোনো শহরে একজন করে পুরুষের জন্য ৭২ টা করে নারী (যৌনদাসী) বরাদ্দ দিলে পুরো শহরটা একটা সমৃদ্ধ বেশ্যাগারে রূপ নেবে।

৩৫.
"আমি একজন প্রকৃত মুসলিম এবং আমি ভীষণ অসাম্প্রদায়িক।"

হাহাহাহা... ওহ স্যরি! ইসলামিক রসিকতায় তো হাসা ঠিক না। যে ধর্ম বিধর্মীদের সাথে বন্ধুত্ব করতে নিষেধ করেছে বারংবার, সেই ধর্মে বিশ্বাসী একজন মানুষ বলছে যে, সে কিনা অসাম্প্রদায়িক! হাহাহাহা... ওহ, স্যরি।