৩ জুলাই, ২০১৬

নবী সমীপে খোলা চিঠি - ৫

লিখেছেন পুতুল হক

মাননীয় নবী,

আমার প্রতিটি চিঠিতে আমি আপনার প্রতি ভালোবাসা জানাই। আমি মনে করি, ভালোবাসা পারে মানুষকে বদলাতে। কিন্তু আপনি বদলাবেন কীভাবে? আপনি যে মৃত! খুশি হতাম, আপনার শিক্ষাও যদি আপনার মত মৃত হত। এই পৃথিবীর, পৃথিবীর শত কোটি মানুষের তাহলে খুব উপকার হত।

দেড় হাজার বছর আগে আপনার প্রচারিত মতবাদের কারণে আমার ছোট্ট গরীব দেশ সারা পৃথিবীর মানুষের জন্য একটি ত্রাসের জায়গা হয়ে উঠলো। কয়েকজন তরুণ কতগুলো নিরপরাধ মানুষকে গলা কেটে খুন করলো। যাদের খুন করলো, তাদের সাথে তরুণদের কোনো শত্রুতা ছিল না, এমনকি পরিচয়ও ছিল না। বেশির ভাগই ছিল ভিনদেশী। কেন ওরা রক্তপিপাসু হয়ে ওঠে? 

নবী, আমি নির্দ্বিধায় বলতে পারি - আপনি অধর্ম প্রচার করেছিলেন। পৃথিবীর জন্য, পৃথিবীর মানুষের জন্য আপনার অনুসারীদের হুমকি হিসেবে তৈরি করেছেন। বিধর্মী কাকে বলে, নবী? যে আপনাকে বিশ্বাস করে না, তাকে, নাকি যার মধ্যে মানবধর্ম নেই, তাকে? আপনার ধর্ম কী, নবী? 

আপনি চেয়েছিলেন পৃথিবীতে কেবল আপনার মতবাদ টিকে থাকবে, কেবল আপনার অনুসারীরা টিকে থাকবে। এটা কেমন চাওয়া, নবী? পৃথিবী কি আমাদের সবার জন্য নয়? গাছ, পশু, কীটপতঙ্গের জন্যেও এই পৃথিবী। আর মানুষ বাঁচতে পারবে না, যদি না সে আপনার অনুসারী হয়? সারা পৃথিবী আপনার বাপের তালুক নয়, নবী। 

অমুসলিমদের ওপরে জিহাদীরা একের পর এক সন্ত্রাসী হামলা করে, মানুষ খুন করে, লুট করে, ধর্ষণ করে। অমুসলিমরা মুসলিম হবার কারণে তাদের ওপর কি প্রতিশোধ নেয়? একজন পুরোহিত খুনের কারনে একজন ইমাম কি খুন হয়েছে? ইতালীয়রা এ দেশে প্রাণ দিল কেন? ইতালিতে তো মুসলমান আছে। এখন তাদেরকে খুন করা কি যুক্তিযুক্ত হয়? নবী, আপনি ও আপনার অনুসারীরা মানসিক রোগী, খুনি।

এখন যদি মুসলিমদের ধরনে অমুসলিমরা যেখানে মুসলমান পায়, খুন করে, গর্দানের পেছনে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে, মুসলিমদের রক্ত দিয়ে উৎসব করে, মুসলিমদের মা-বোনকে ধর্ষণ করে, সেটা কি উচিত হবে? হবে না। মানুষ সবার ওপরে। কোনো ধর্ম, কোনো মতবাদ মানুষের চেয়েতে বড় নয়। আমার "ধর্ম" আমাকে তাই বলে। এজন্যই আমি অমুসলিম। 

নবী, আপনি মানুষ, আপনার যারা অনুসারী, তারা মানুষ। যারা বিধর্মী, নাস্তিক - তারাও মানুষ। মানুষের যত জ্ঞান, তা মানুষের জন্য। আমরা বেচে থাকি মানুষের জন্য মমতায়। মানুষের চাইতে বড় কিছু নয়। আপনি বা আপনার ইসলাম মানুষের জীবনের চাইতে বড় নয়। মুসলমানরা একদিন হয়তো সে কথা বুঝতে পারবে। এর আগ পর্যন্ত তারা অপরকে কাঁদাবে, নিজেরাও কাঁদবে। এজন্য দায়ী আপনি।