৪ জুন, ২০১৬

পিছিয়ে শিক্ষায়, তবুও বড়াই

লিখেছেন নাস্তিক ফিনিক্স

আরব দুনিয়ার শিক্ষা পদ্ধতি নিয়ে আমি "মুছলিমদের ইহুদিবিদ্বেষের গোপন কারণমূহ" লেখায় আগেই বলেছি কিছু কথা। আজ জলজ্যান্ত উদাহরণ দিই দুটো।

আরব দুনিয়াতে কিছু Man Made জিনিস আছে, যার বিশ্বজোড়া নাম, আর তা নিয়ে মমিন-মমিনাদের বড়াইয়ের অন্ত নেই। তার মধ্যে এই দুটো সব থেকে বিখ্যাত: Burj Khalifa এবং Palm Islands

প্রথমটা - বিশ্বের উচ্চতম অট্টালিকা, দ্বিতীয়টা - বিশ্বের সবচেয়ে বড়ো Man Made Archipelago বা 'মানুষের দ্বারা নির্মিত দ্বীপপুঞ্জ।

এই দুই নির্মাণের পেছনে যারা আছে, তারা কেউ মমিন নয়। অথচ কোনো এক অজ্ঞাত জাদুতে এগুলো বানানোর কৃতিত্ব মমিনরা নিয়ে থাকে।

এই দেখুন, Burj Khalifa:
প্রধান ইঞ্জিনিয়ার: Bill Baker (আমেরিকান খ্রিষ্টান)
প্রধান আর্কিটেক্ট: Adrian Smith (আমেরিকান খ্রিষ্টান)
প্রধান কনট্র্যাক্টর: Samsung Construction & Trading (দক্ষিণ কোরিয়ার কম্পানি) এবং Besix (বেলজিয়ামের সব থেকে বড় নির্মাণ সংস্থা)
Transport কনট্র্যাক্টর (যারা চলমান সিঁড়ি এবং লিফট বানান): Otis (আমেরিকান সংস্থা)
এবার আসি Palm Island-এ:
Robert Berger (Project manager)
Mounir Hevar (Chief of planning)
Scott Hutchinson (Apartment Construction engineer from Turner Construction International)
Samuel O'Carroll (Civil engineer)
এটা বানিয়েছে দুটো সংস্থা, Jan De Nul (বেলজিয়ামের নির্মাণ সংস্থা) এবং Van Oord (নেদারল্যান্ডস-এর নির্মাণ সংস্থা)
এগুলো কেবল মাত্র দু'টি উদাহরণ।

আরব দুনিয়ার Technological Technical বা Engineering বিষয়ে ডকুমেন্টারি দেখুন, তেল তোলা থেকে শুরু করে নির্মাণ, ইঞ্জিনিয়ার থেকে শুরু করে নির্মাণ সংস্থা, প্রায় কোথাও আরব বা অন্য কোনও দেশী মমিন খুঁজে পাওয়া যাবে না।

নিজেদের মুরোদ নেই তেল উত্তোলন করার, তাই নির্লজ্জের মতো ইহুদি-নাছারাদের উদ্ভাবিত আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হয়। তবে এই ব্যর্থতা ঢাকা দিতে অক্ষম যুক্তি প্রয়োগ করতে পিছ পা হয় না: "ইহুদি-নাসারারা তেল চুরি করে নিচ্ছে!"