৯ জুন, ২০১৬

নবী সমীপে খোলা চিঠি - ৩

লিখেছেন পুতুল হক

মাননীয় নবী, 

শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা জানবেন। ভাই, আজকে আমি সরাসরি মূল কথাতে আসছি। আমার মন ভীষণ খারাপ এবং উত্তপ্ত। আমরা সমগ্র মানব জাতি কি আপনার শত্রু? প্রজন্মের পর প্রজন্ম, হাজার হাজার বছর ধরে আপনি আমাদের সাথে শত্রুতা করছেন, কিন্তু কেন? কত রাগ, কত দুঃখ, কত লোভ ছিল আপনার ভেতর, যার কারনে আপনি এমন একটি মতবাদের জন্ম দিয়ে গেলেন? ৬১০ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ২০১৬, মধ্যপ্রাচ্য থেকে আফ্রিকা, ইউরোপ, এশিয়া সব জায়গাতে আপনার লোভ আর হিংস্রতার নখর বিস্তারিত। 

আপনার উম্মতরা, বুঝে হোক কিংবা না বুঝে হোক, জেনে হোক কিংবা না জেনে হোক, পৃথিবীতে ইসলামী শাসন চায়। কোনো অঞ্চল নয়, কোনো নির্দিষ্ট দেশ নয়, তারা গোটা পৃথিবীর ওপর তাদের রাজত্ব তথা আপনার এবং আপনার আল্লাহর রাজত্ব চায়। মানব সভ্যতার ইতিহাস থেকে জানি আমরা, রাজা যাবে রাজা আসবে, ক্ষমতার পালাবদল হবে, মানচিত্র পাল্টাবে, কিন্তু আপনাদের মুসলমানদের এক রাজা, সে হচ্ছেন আপনি। পৃথিবীর একটাই মানচিত্র, আর তা হচ্ছে ‘গোটা পৃথিবী।’ অনন্তকাল ধরে, সমগ্র বিশ্ব জুড়ে আপনি ভূত হয়ে থাকবেন রাজ সিংহাসনে।

আপনার উম্মতরা দুনিয়াতে মুসলমান ছাড়া আর কারো অস্তিত্ব মেনে নেবে না। কারণ আপনি সেরকম বলেছেন। বিধর্মী মাত্রই নিকৃষ্ট, উপহাস এবং অভিশাপের পাত্র। তাদের খুন করা যাবে, তাদের সম্পদ লুট করা যাবে, তাদের মেয়েদের ধর্ষণ করা যাবে। তাদের উঠতে বললে তারা উঠবে, বসতে বললে তারা বসবে। তারা মাথা হেট করে চলবে। তাদের জান-মালের মালিক মুসলমান। তারা কখনোই মুসলমানের সমকক্ষ হতে পারবে না, কারণ তারা আপনাতে এবং আপনার আল্লাহতে বিশ্বাস রাখে না। এই অবস্থা চলবে দুনিয়া ধ্বংসের আগ পর্যন্ত। একেই বলে ‘দারুল ইসলাম’। 

আচ্ছা, আপনার আল্লাহর জন্য বেহেস্তে ‘কুরসী’ আছে। তার পাশেই নাকি আপনার জন্য একখানা চেয়ার আছে, যদিও তার নাম আমার জানা নেই। পরকালে যাদের বিশ্বাস, তারা মানে - এক সময় মানুষের মৃত্যু হবে, দুনিয়াদারীর খেলা শেষ হবে, তখন অনন্ত জীবন শুরু হবে, যখন দুনিয়ার কোনো বিষয়ে ভাববার কোনো অবকাশ থাকবে না। আপনি, ভাই, মরেও তো মরলেন না। 

আপনার উম্মতরা, পাছা বের হওয়া মুসলমানরা, টুপি আর হিজাব দিয়ে মাথা ঢেকে চলে। আপনার কলিজা শীতল করার জন্য চাপাতিতে শান দেয়। আপনি তাদের পরম। আপনি তাদের মিতা। আপনার জন্য তারা সব কিছু করতে পারে। তারা জানে ‘শান্তি’ অর্থ - আপনার আদেশ পালন করা। তারা সেটাই করে যাচ্ছে।