২৮ জুন, ২০১৬

নবী সমীপে খোলা চিঠি - ৪

লিখেছেন পুতুল হক

মাননীয় নবী,

ভালোবাসা জানবেন। আমি মাঝে মাঝে আপনার কথা ভেবে অবাক হই। আপনার পেশায় আপনি প্রচণ্ডভাবে সফল, একথা বলার অপেক্ষা রাখে না। এর কারণ আমার কাছে যা মনে হয়, তা হল - আপনি আপনার সময়ে একজন আধুনিক মানুষ। আপনার সে সময়কার উম্মতদের আপনি কখনো পেছনে ফিরে যেতে বলেননি। তাদের বলেননি কাপড় ছেড়ে আল্লাহর দেয়া গাছের ছাল পরো। যুদ্ধে ব্যবহার করেছিলেন সে সময়কার আধুনিক অস্ত্র। জবের রুটি খেয়েছেন, কাঁচা জব চিবিয়ে খাননি। তখনকার সময়ে মানুষের অর্জিত জ্ঞানের আপনি পুরোপুরি সদ্ব্যবহার করেছেন।

নবী, আপনি কোনোকিছুর জন্য আল্লাহর মুখাপেক্ষী ছিলেন না। আপনি নির্ভরশীল ছিলেন খাদিজার সম্পদ, অনুসারীদের বাহুবল আর আপনার বুদ্ধির ওপর। প্রাথমিকভাবে এই তিন শক্তি আপনার সফলতার সূত্রপাত ঘটিয়েছিল। আল্লাহকে আপনি সৃষ্টি করেছেন অপরদের জন্য। অনুসারীরা তাদের অর্জিত সফলতার জন্য আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করবে। ব্যর্থতাকে আল্লাহর ইচ্ছা বলে মেনে নেবে। তাদের মন, তাদের শরীর আপনি আল্লাহ নামের কাল্পনিক রশি দিয়ে বেধে ফেলেছেন। এ সব কিছু আপনি করেছেন আপনার স্বার্থে।

যিশু যদি ঈশ্বরের স্রষ্টা না হতেন, তবে তিনি যীশু হতেন না। আপনি যদি আল্লাহর স্রষ্টা না হতেন, তবে আপনি কি হতেন? সৃষ্টিকর্তারা সব সময় আপনাদের ওপর নির্ভর করেছেন, আপনারা তাদের ওপর নির্ভরশীল নন।

বেহেশতে আপনি সেরা খাবার খাবেন, তাতে দুনিয়াতে আপনার ভালোমন্দ খাওয়া আটকে ছিল না। বেহেস্তে আপনি যৌনতার জন্য সেরা হুর পাবেন, তাতে দুনিয়াতে একের পর এক বিবি ও দাসী গ্রহণ বন্ধ ছিল না। আপনি জানতেন না, মৃত্যুর পর কী আছে। কাজেই জীবনকে উপভোগ করা আপনি থামিয়ে রাখেননি। যখন, যেভাবে, যতটুকু সম্ভব, আপনি জীবন উপভোগ করেছেন চুমুকে চুমুকে।

আপনি কি জানতেন, আপনার মৃত্যুর কয়েক মাসের মধ্যে আপনার প্রিয় কন্যা নিদারুণ মনের কষ্টে মারা যাবেন? আপনি কি জানতেন, আপনার প্রিয় হাসান-হোসেন এমন করুণ মৃত্যুর শিকার হবেন? আপনি জানতেন না, নবী। তারা হয়তো আপনার প্রতিটি কথা বিশ্বাস করতো। আপনি আপনার একান্ত প্রিয় মানুষদের মিথ্যা বলেছিলেন। আপনার ধূর্ততার শাস্তি পেয়েছে আপনার বংশধরেরা।

আপনার সময় থেকে আমার সময়ের ব্যবধান প্রায় পনেরশ বছর। মহাকালের কাছে এ সময় কিছুই নয়। আমি বুঝতে পারি, আপনার বয়ান করা কল্পকাহিনী কতটা বানোয়াট আর ভুলে ভরা। আগামীর মানুষগুলো আরো বেশি করে বুঝতে পারবে।

আপনি সেকালে একজন আধুনিক মানুষ হয়েও যে-ভুল করেছিলেন, তা হল - আপনি বুঝতে পারেননি যে, আধুনিকতা গতিশীল, তা এক জায়গায় থেমে থাকে না। গত পনেরশ বছরে আমরা অনেক দূর এগিয়েছি। মুসলমানদের উন্মাদনার কারণ - তারা বর্তমানের সাথে আপনার সময়ের সুতো ধরে রাখে। তারা বর্তমানকে অস্বীকার করে পেছনে যায় না, আবার পেছনটাকেও ছাড়ে না। এমন অবস্থা চলতে থাকলে তারা হয় পৃথিবীকে ধ্বংস করবে, নয়তো নিজেরা ধ্বংস হবে। মানুষের জীবনের মূল্য আপনার কাছে কখনো ছিল না। তবুও আপনার কাছে জানতে ইচ্ছে করে, আপনি কি চাইবেন কোটি কোটি মানুষ, যারা আপনাকে মন দিয়ে ভালোবাসে, প্রতিনিয়ত তারা এমন উন্মাদের জীবন কাটাবে?