২১ মে, ২০১৬

বুদ্ধাং সারানাং গাঞ্জামি

আজ বুদ্ধ পূর্ণিমা। এই তিথিতে বুদ্ধ সিদ্ধিলাভ করেছিলেন।
সিদ্ধির একটি অর্থ কিন্তু গাঁজা। খিয়াল কৈরা!

গত বছর এই দিনে লেখা ওপরের কথাগুলোয় কিছু পুতুপুতু বুদ্ধপ্রেমী নাস্তিকও বেতা পেয়েছিলেন দিলে। ধারণা করা যায়, বুদ্ধের বর্ণিত শ্রুতিসুখকর ও আপাত আনন্দানুভূতিদায়ী কিন্তু ভুয়া, ভিত্তিহীন ও ভকিচকি মার্কা বাস্তবতাসংশ্লেষহীন কিছু বাণীর অন্ধ মোহে আচ্ছন্ন হয়ে আছেন অনেকেই। অতএব একটাই চাওয়া:

জগতের সকল প্রাণী বিভ্রমমুক্ত হোক।

অবস্থাদৃষ্টে মনে হয়, ইছলাম ধর্মের মতো বৌদ্ধধর্মেরও চন্দ্রবাতিকগ্রস্ততা আছে। বুদ্ধের জন্ম এই পূর্ণিমাতে, তারপর অন্য এক পূর্ণিমার রাতে স্ত্রী-পরিবারকে গোপনে ত্যাগ করে কাপুরুষের মতো ঘর ছেড়ে পালিয়েছিলেন তিনি (যদিও ঘৃণার্হ এই ঘটনার ভেতরেও মাহাত্ম্য ও মহিমা খুঁজে পায় বুদ্ধপ্রেমীরা - অবশ্য প্রেম সব সময়ই অন্ধ), অতঃপর আবার এই পূর্ণিমাতেই তিনি সিদ্ধিলাভ করেন এবং তাঁর মুত্যুও এই পূর্ণিমাতেই। কী তাজ্জিব কাণ্ড! পুরাই অলৌকিক ব্যাপারস্যাপার! 

অনিবার্যভাবে আবারও মনে পড়ে যায়: সিদ্ধির একটি অর্থ গাঁজা।