১১ মে, ২০১৬

একটি প্যারোডি, একটি কবিতা

কামিনী রায় রচিত বিখ্যাত কবিতা "পাছে লোকে কিছু বলে"-র প্যারোডি করেছেন নাস্তিকথন

না করি চার শাদী, 
ভোগিতে না পারি বাদী
মডারেটের সুন্নত সদা টলে,
পাছে লোকে কিছু বলে।

আড়ালে আড়ালে চলি, 
কুরানের ডাক ভুলি,
জিহাদে চরণ নাহি চলে,
পাছে লোকে কিছু বলে।

ভেজে ঈমানদণ্ড, আঁখি – 
জোব্বা মুছে শুষ্ক রাখি
শিশু দেখে কামনার জলে,
পাছে লোকে কিছু বলে।

চার বিবি ছয় দাসী – 
মমিনের মুখে হাসি
না ফোটে চক্ষুলজ্জার ছলে,
পাছে লোকে কিছু বলে।

গনিমত লোভে যবে - 
একসাথে মিলে সবে,
পারিনা মিলিতে সেই দলে,
পাছে লোকে কিছু বলে।

* ২০১৪ সালে প্রকাশিত একই কবিতার আরেকটি প্যারোডি "পাছে হুজুর পাছা ডলে"
#

নিচের কবিতাটি লিখেছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

চাপাতির কাছে জিম্মি কলম
মন্দের কাছে ভালো
ঘাড়ের নিচেতে কুপিয়ে দেখাও
ধর্ম নামের কালো।

বাতাসেতে নয়, চাপাতিতে নড়ে
ধর্মের ধারী কল,
নাস্তিকদের কুপিয়ে মারতে
দু'হাতে অযুত বল।

লেখার জবাব লেখা দিয়ে নয়
রক্ত ঝরিয়ে তবে
আতঙ্কে-ত্রাসে ভরলে সমাজ
শ্রদ্ধায় নত হবে।

শেখালো কে এই ধর্মের নামে
চাপাতির ব্যবহার
কুপিয়ে কুপিয়ে সবাইকে মেরে
করে দেবে ছারখার?