২৯ এপ্রিল, ২০১৬

ভিডিও লিংকিন পার্ক

১. অনেক মেধাবী মানুষও ধর্ম ও ঈশ্বরে বিশ্বাস করে - এমন দাবির মাধ্যমে ধর্ম ও ঈশ্বরের সত্যতা ও প্রয়োজনীয়তা প্রমাণ করার চেষ্টা করে থাকে আস্তিকেরা। সেই দাবির ভিত্তিহীনতা ও সারশূন্যতা প্রকট করে তোলা হয়েছে একটি ভিডিওতে। আর ঠোঁটকাটা বিল মার তো এই দাবিকে শুধু নস্যাৎই করেননি, করে তুলেছেন হাস্যকরও। মেধাবী বিশ্বাসীদের তিনি ডেকেছেন smart stupid person নামে। অতীব উপভোগ্য ভিডিও। 
https://youtu.be/Y201QzDdzbg, https://youtu.be/ocv7F586SQU

২. বিবর্তনের প্রমাণ আছে আমাদের শরীরেই। যুক্তি-প্রমাণ না-মানা হাওয়ার পোলাদের জন্য এই ভিডিও দ্রষ্টব্য নয়।
https://youtu.be/rFxu7NEoKC8

৩. মমিনেরা যতোই দাবি করুক, জিহাদ সব সময়ই শান্তিপূর্ণ, কোরান, হাদিস, নবীর জীবনী ও ইছলামের ইতিহাস থেকে উদ্ধৃতি দিয়ে সে কথাই সর্বৈব মিথ্যা প্রমাণ করেছেন মধ্যপ্রাচ্যে বেড়ে ওঠা আরবিভাষী নাস্তেক মহিলা।
https://youtu.be/KXGE2eBUdlQ

৪. ইহুদি শিশুবালকের খতনা করার অব্যবহিত পর র‍্যাবাই (ইহুদি মোল্লা) বালকের লিঙ্গ মুখে পুরে নিয়ে রক্ত চুষতে থাকে। এটাই তাদের রীতি ও ঐতিহ্য। খতনা ব্যাপারটাই বীভৎস, তদুপরি রক্তচোষার প্রথা! তো এই ড্রাকুলাগিরির নাকি বিশাল গুরুত্ব আছে! অন্তত ইহুদি মোল্লা সেটাই প্রমাণ করতে চাইছে।
https://youtu.be/g2Ij3l8qoxU

৫. Enlightenment-এর নামে বৌদ্ধধর্মে চলে যৌননিপীড়ন। ২১ মিনিটের ডকুমেন্টারি।
https://youtu.be/yWhIivvmMnk

৬. মসজিদগুলো উপাসনালয় শুধু নামেমাত্র। অধিকাংশ মসজিদের প্রধান কাজ বীভৎস ঘৃণা ও সহিংসতা প্রচার এবং জঙ্গি উৎপাদন। ব্রিটেনের মসজিদে গোপন ক্যামেরায় তোলা ভিডিও ব্যবহার করে নির্মিত একটি ডকুমেন্টারি Undercover Mosque প্রচারিত হয়েছিল ২০০৭ সালে। এরপর ২০০৮ সালে প্রচারিত হয়েছিল Undercover Mosque: The Return. দেখতে গেলে গায়ের রোম শিউরে ওঠে। বোঝাই যায়, এই ডকুমেন্টারিগুলো ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষকে সজাগ ও সতর্ক করতে পারেনি। 
https://youtu.be/kJk_AiK-4No, https://youtu.be/njRKaX0ORuI