৮ জানু, ২০১৬

২০১৫: ধর্মীয় ইতরামি ও বিজ্ঞানের অবদানের সালতামামি

২০১৫ সালে ধর্মগুলোর বিবিধ ইতরামির একটি সংক্ষিপ্ত সচিত্র খতিয়ানের অসম্ভব শ্রমসাধ্য ও সময়সাপেক্ষ একটি ইমেজ-সংকলন নির্মাণ করেছেন Dargo200

সংকলনটি ৬ খণ্ডে ভাগ করা হয়েছে। একেক খণ্ডে রয়েছে পিঠোপিঠি দু'মাসে ঘটানো ধর্মীয় কুকীর্তির সংবাদ ও ছবি। প্রতিটি ছবিতে প্রতীকের মাধ্যমে সেই ইতরামির সঙ্গে জড়িত ধর্মকে চিহ্নিত করা আছে। এবং ইতরামির সার্বিক হিসেবে শান্তির ধর্ম ইছলামের নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিশ্চিতভাবেই পূর্বানুমেয়।

ইমেজগুলো আকারে অত্যন্ত বড়ো বলে ব্লগে প্রকাশযোগ্য নয়। দেখতে হলে নিচের লিংকগুলোয় ক্লিক করতে হবে। প্রতিটি ইমেজ কতো মেগাবাইট খেয়ে ফেলবে, সেটাও উল্লেখ করে দেয়া হলো।

১) জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি (৪.৩ মেগাবাইট), ২) মার্চ-এপ্রিল (৩.৩ মেগাবাইট), ৩) মে-জুন (৩.৫ মেগাবাইট), ৪) জুলাই-আগস্ট (৪.৪ মেগাবাইট), ৫) সেপ্টেম্বর-অক্টোবর (৪ মেগাবাইট), ৬) নভেম্বর-ডিসেম্বর (৩.৮ মেগাবাইট)

সবগুলো ইমেজ একসঙ্গে

সংকলনে উল্লেখিত প্রতিটি সংবাদের লিংক পাওয়া যাবে এখানে। অধিকাংশ সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল ধর্মকারীতেও: একদুই


দেখাই যাচ্ছে, ধর্মগুলো আল্যার ওয়াস্তে অবদানে-অবদানে ভরিয়ে ফেলেছে গত বছর। তো ধর্মের সবচেয়ে বড়ো শত্রু বিজ্ঞান কী উৎপাটন করেছে সে সময়ে? 

এমন অবদানের ক্ষেত্রে ধর্ম নিশ্চয়ই অপ্রতিদ্বন্দ্বী। বিজ্ঞান কবে ধর্মের সঙ্গে পেরে উঠেছে ইতরামিতে! তারচে' বরং বিজ্ঞান যা-যা করতে পেরেছে গত বছরে, তার একটি মনোহর সংক্ষিপ্ত সংকলন দেখে নেয়া যাক।