২৪ অক্টোবর, ২০১৫

ফাতেমা দেবীর ফতোয়া - ২৪

লিখেছেন ফাতেমা দেবী (সঃ)

১১৬.
হত্যা, ধর্ষণ, লুন্ঠন, জোরপূর্বক ধর্মান্তরকরণ, অন্যের উপাসনালয় ধ্বংসকরণ, ভাস্কর্য ধ্বংসকরণ, নারীর অপমান, স্ত্রী-প্রহার, মানুষের হাত কেটে ফেলে দেওয়া, মানুষকে পাথর ছুঁড়ে খুন করা, মানুষের মাথা কেটে ফেলে দেওয়া ইত্যাদি এসবই তো ইছলাম। ইছলামকে জানতে-চিনতে এখনো বাকি আছে কি?

১১৭.
হাইড্রোজেনের দু'টি পরমাণু ও অক্সিজেনের একটি পরমাণু দিয়ে পানির একটি অণু গঠিত হয়। জমজমের পবিত্র জল ও গঙ্গার পাক পানির ক্ষেত্রে কি তা ভিন্ন?

১১৮.
আমরা দেখতে পাই, আল্যার হুকুমে বিধর্মীরাই জ্ঞান-বিজ্ঞান, শিক্ষা, মানবতা, শিল্প, সাহিত্য ইত্যাদিতে মুছলমানদের চেয়ে হাজার হাজার গুণ এগিয়ে আছে। নবীজির আমল থেকেই আল্যার হুকুমে কাফেররা জ্ঞান-বিজ্ঞানে অনেক এগিয়ে ছিল। যেমন, উহুদের যুদ্ধে কোনো যন্ত্রপাতি ছাড়াই, অ্যানেস্থেশিয়া ছাড়াই শুধু একখণ্ড পাথর ছুঁড়ে এক কাফের আল্যার হুকুমে নবীজির একজন দাঁত মোবারককে সফলভাবে শহীদ করে দিল।

১১৯.
হুরীকুল কি গর্ভধারণ করতে ও সন্তান জন্ম দিতে সক্ষম, নাকি ওরা বন্ধ্যা? যদি বন্ধ্যা না হয়, তাহলে এক মমিনের অধিকারভুক্ত ৭২ হুরীর গর্ভে প্রতি ৯ মাসে অন্তত ৭২ খানা জারজ (য়্যাল্ল্যার আইন অনুযায়ী) জন্মানোর সম্ভাবনা সব সময়ই থাকবে।

১২০.
মসজিদ আল্যার গৃহ। আল্যা নিজের গৃহ নিজে বানাতে পারে না। মমিনরা আল্যার জন্য গৃহ বানিয়ে দেয়। তারপর আল্যা সেই গৃহে বাস করে। আল্যা মমিনদের গৃহপালিত জন্তু।