২ অক্টোবর, ২০১৫

হাইকোর্টের ত্রিবার্ষিক নিষ্ফলা ধর্মকারী-নিষিদ্ধকরণ প্রকল্প

অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, প্রতি তিন বছর অন্তর ধর্মকারী বন্ধ করার রায় দেবে হাইকোর্ট। 

ধর্মকারীর জন্ম ২০০৯ সালে। এর তিন বছর পর ২০১২ সালের মার্চ মাসে ধর্মকারী বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট। সেই আদেশ রহিত করা হয়েছে, এমন কোনও খবর কখনও পাইনি। 

তবে গতকাল, আবারও তিন বছর পর, কয়েকটি টিভি চ্যানেল ও বেশকিছু পত্রিকা মারফত জানা গেল, বাংলাদেশ থেকে ধর্মকারী ডট কম ও একই নামের ফেইসবুক পেইজ বন্ধ করার নির্দেশ হাইকোর্ট আবার জারি করেছে। 

বন্ধ করা বলতে হাইকোর্ট বুঝিয়েছে, বাংলাদেশ থেকে ধর্মকারী ব্লগ ও ধর্মকারী ফেইসবুক পেইজের অ্যাকসেস বন্ধ করা। কিন্তু স্থূলমস্তিষ্ক অভিযোগকারী ও প্রযুক্তি-প্রতিবন্ধী বিচারকদের কে বোঝাবে যে, প্রযুক্তির এই যুগে তাদের এই উদ্যোগ ঠুনকো, খেলো, অকেজো ও তাদের জন্যই লজ্জাজনক? ব্লগ ও পেইজ তো থাকবে বহাল তবিয়তেই। তবে দেশ থেকে ধর্মকারী ডট কম-এ হয়তো সরাসরি ঢোকা যাবে না। কিন্তু তাতে প্রলয় কি থেমে থাকবে? তুচ্ছ প্রক্সির ব্যবহার হাইকোর্টের এই যুগান্তকারী রায়কে কাঁচকলা দেখিয়ে তার সম্ভ্রমহানিই করবে শুধু।

২০১২ সালেও তো একই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল। কিন্তু কী ফল হয়েছে তাতে? ধর্মকারী মুখ থুবড়ে পড়ে মহাকালের অতল গর্ভে হারিয়ে গেছে? না, বরং সেই রায়ের সুবাদে বেড়েছে ধর্মকারীর পরিচিতি, যা ব্লগটির জনপ্রিয়তা বৃদ্ধিতে বিপুল সহায়তা করেছে। আর এবারের রায়ের ইতিবাচক প্রভাবও ইতোমধ্যেই অনুভব করা যাচ্ছে। গতকাল ধর্মকারীর পাঠকসংখ্যা ছিলো গড়পড়তা দিনের চেয়ে প্রায় চারগুণ বেশি! বিনে পয়সায় নিঃস্বার্থভাবে ধর্মকারীর বিজ্ঞাপন করার জন্য মামলার রিট আবেদনকারী ও হাইকোর্টের বিচারকদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা রইলো।

এবার সাধারণ পাঠকদের জন্য জ্ঞাতব্য। www.dhormockery.com কাজ না করলে মুশকিল আসান তরিকা:

২. bit.ly/ধর্ম (ধর্মকারী ডট কম প্রক্সি)
৩. j.mp/প্রক্সি (ধর্মকারী ডট নেট প্রক্সি)
৪. bit.ly/হাইকোর্ট (হাইকোর্টের রায়কে হাইকোর্ট দেখাতে আরও একটি প্রক্সি)

দোয়া-দরুদ পড়ে বুকে ফুঁ দিয়ে চেষ্টা করলে একটা না একটা লিংক কাজ করবেই ইনশাল্যা।

আর যাঁরা TOR-এর মতো অপ্রতিরোধ্য ব্রাউজার ব্যবহার করেন, তাঁদেরকে এই জাতীয় ব্লক-ব্যান স্পর্শই করবে না।