৫ মে, ২০১৫

মূত্রভাষা আরবি চাই

১.
নিচের আরবি লেখাটি কাগজে ছাপা অবস্থায় পায়ের নিচে পড়ে থাকলে যে কোনও মমিন মুছলিমই বিনম্র শ্রদ্ধায় সেটা তুলে নিয়ে চুমু খেয়ে সরিয়ে রাখবে পদদলিত হবার সম্ভাবনাহীন নিরাপদ স্থানে। কারণ আরবি মহাপবিত্র ভাষা। সুরা-আয়াত-দোয়া-দরুদ ছাড়া আর কিছু কি রচিত হতে পারে আল্লাহ-নবীর প্রিয় ভাষায়!

” بدأ كيم ولعق مص ديك بلدي ، انها لا تستطيع الحصول على كل شيء تماما أسفل حلقها ، ولكن كان يفعل تماما على وظيفة ، الرجيج بالتسجيل لأسفل مع يدها اليمنى كما انها امتص. أنا سحبت ركبتيها على جانبي رأسي ، انزلق سراويل من روعها ، ويبحث حتى في أجمل كس رأيته من أي وقت مضى. أنا انتشار شفتيها فتح وامسحي صعودا وهبوطا لها فتحة ، 

এখন দেখা যাক, পবিত্রতম ভাষায় কী লেখা আছে এখানে? গুগলের অনুবাদ দেখুন: 

"Kim began licking and sucking my dick, she can not get everything completely down her throat, but he did quite a job, jerking up down with her right hand as she sucked. I pulled her knees on either side of my head, slid her down panties, and looking up in the most beautiful pussy I've seen ever. I spread her lips open and licked up and down her slot..."

পথপাশে, দেয়ালে বা যত্রতত্র নির্লজ্জের মতো ছ্যাচ্ছেড়ে মূত্রত্যাগ করার সৌরভময় ঐতিহ্যটি অনেক বাঙালি পুরুষের সংস্কৃতির অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ। এই অভ্যেসটা তাদের এতোটাই প্রবল যে, জলবিয়োগের ওপর নিষেধাজ্ঞা সংক্রান্ত কোনও নোটিস কোথাও থাকলেও কেউ তা নোটিসও করে না, বা করলেও পাত্তা না দিয়ে নির্বিকার চিত্তে বহুশাখাধারী মূত্রধারা সৃষ্টি করে চলে ঠিক সেখানেই। 

বাঙালির এহেন মূত্রত্যাগাভ্যাস পরিবর্তনের লক্ষ্যে সরকার একটা উদ্যোগ নিয়েছে। বাংলায় লেখা 'এখানে প্রস্রাব করা নিষেধ' বাণীটি প্রতিস্থাপন করা হচ্ছে আরবি ভাষা দিয়ে। 

গড়পড়তা বাঙালি আরবি পড়তে পারে না, বা পড়তে পারলেও বুঝতে পারে না। এদেরকে আলিফ-অক্ষর উটমাংস বলা যায়, বোধহয়। তবে যেহেতু আরবিকে পবিত্র ভাষা জ্ঞান করা হ্যাংলা বাঙালি আরবি-চটিকেও চুমু খেতে পারে, তাই আরবিতে লেখা নোটিস দেখে অন্তত আরও কিছুক্ষণ মূত্রনিয়ন্ত্রণবিড়ম্বনা সইতে হবে মুছলিম পুরুষদের আলিফ বেচারাকে। 

উদ্যোগটি ফলপ্রসূ হচ্ছে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করা হচ্ছে প্রাসঙ্গিক ভিডিও-তে। 

সরকারের এই মহৎ উদ্যোগকে পরিপূর্ণভাবে সফল করে তুলতে দলে দলে উচ্চকণ্ঠে স্লোগান তুলুন:

মূত্রভাষা আরবি চাই!

* নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজনের আইডিয়া থেকে দাঁড়িপাল্লা ধমাধম বানিয়ে দিয়েছেন নিচের পোস্টারগুলো।




নিচের ছবিটি ফাকিস্তানের এক দেয়ালের। পোস্টারে লেখা কথাটা এই দেয়াল-লিখনেরই অনুবাদ। লিংকে ক্লিক করে প্রথম ছবিটি দেখুন।