৩০ মে, ২০১৫

জাকির নায়েক - আল্লাহ, নাকি প্রতারক?

লিখেছেন সমকোণী বৃত্ত

অনেকেই, দেখছি, জাকির নায়েককে অনেক অনেক বড় কিছু মনে করে। আমি তাকে আরো বড় মনে করি - একেবারে আল্লার মতো বড়। বিশ্বাস হচ্ছে না তো?

আসুন, প্রমাণ করি - জাকির নায়েকই আল্লাহ!

জাকির নায়েক তার লেকচারে সমগ্র মানবজাতিকে চ্যালেঞ্জ করে বলেন, সমগ্র কুরানে একটা সিঙ্গেল আয়াতেও ভুল নেই। এবং তিনি কুরানের সকল আয়াতেরই ব্যাখ্যা জানেন এবং যুক্তিপূর্ণ (তার এবং তার সাপোর্টারদের মতে যুক্তিপূর্ণ) ব্যাখ্যা দিয়ে থাকেন।

এবার আসুন, দেখি, কুরান কী বলে।
তিনিই আপনার প্রতি কিতাব নাযিল করেছেন। তাতে কিছু আয়াত রয়েছে সুস্পষ্ট, সেগুলোই কিতাবের আসল অংশ। আর অন্যগুলো রূপক। সুতরাং যাদের অন্তরে কুটিলতা রয়েছে, তারা অনুসরণ করে ফিৎনা বিস্তার এবং অপব্যাখ্যার উদ্দেশে তন্মধ্যেকার রূপকগুলোর। আর সেগুলোর ব্যাখ্যা আল্লাহ ব্যতীত কেউ জানে না। আর যারা জ্ঞানে সুগভীর, তারা বলেনঃ আমরা এর প্রতি ঈমান এনেছি। এই সবই আমাদের পালনকর্তার পক্ষ থেকে অবতীর্ণ হয়েছে। আর বোধশক্তি সম্পন্নেরা ছাড়া অপর কেউ শিক্ষা গ্রহণ করে না।
(সূরা আল ইমরান, আয়াত ৭)
খেয়াল করুন:
আর সেগুলোর ব্যাখ্যা আল্লাহ ব্যতিত কেউ জানে না।
তাহলে তিনি কীভাবে সমগ্র কুরানের ব্যাখ্যা জানেন? 

আবার তিনি এটাও বলেন, "কেউ কুরানের সিঙ্গেল আয়াতেরও ভুল বের করতে পারবে না।" 

কেউ একটা সিঙ্গেল আয়াতের ভুল ধরলে তিনি সেই সিঙ্গেল আয়াতেরও ব্যাখ্যা দিয়ে সেটাকে 'শুদ্ধ' প্রমাণ করেন। আর এভাবে প্রতিটা সিঙ্গেল আয়াত মিলেই তো পুরো কুরান, তাই না? তো এভাবে প্রতিটা সিঙ্গেল আয়াতের ব্যাখ্যা দিতে দিতে পুরো কুরানেরই ব্যাখা দিয়ে ফেলেছেন তিনি।

অথচ আল্লাহ নিজেই বলেছেন, এটা আল্লাহ ছাড়া সম্ভব নয়।

অতএব প্রমাণিত হল, জাকির নায়েকই আল্লাহ। 

নয়তো প্রতারক।

* এই পোস্টটি জাকির নায়েকের ভক্তদের উৎসর্গ করলাম।