১৩ জানু, ২০১৫

মহাম্মকবধ নাট্য

লিখেছেন হাইয়্যা আলাল ফালাহ্‌

স্থান: হেরা গুহ্যদ্বার
ওয়াক্ত: সুবহে কাযিব [i]

(মহাবদ (খাঃ পোঃ) ও সাহাবায়ে কেরামগণ রাত্রিকালীন পিনিকে [ii] মত্ত। “আল্লাহুম্মা ইন্নি আউযুবিকা মিনাল খুবছি ওয়াল খাবাইছ” জপিতে জপিতে পোস্টমাস্টার জিব্রাইলের প্রবেশ।)

মহাবদ: সারা রাতের পিনিকে দন্ডায়মান হয় না যে ঈমান।

জিব্রাইল: আনিয়াছি গনিমতের মাল, ধরিতে পিছলামের সম্মান।
হেরিয়া, তব ক্কল্‌ব্‌ করিবে ঝিলমিল।

মহাবদ: দ্রুত কর্‌, শালা, তোর ওহী নাযিল।

আবু বকর: এতক্ষণে অরিন্দম কহিলা বিষাদে

মহাবদ: (স্মিতহাস্য) পিছলাম আনিয়াছি কি আমি সাধে? 

(জিব্রাইলের ইশারায় এক কাফের নারীর প্রবেশ)

কাফের নারী: আল-আমিন, তোকে বিশ্বাস করিয়াছিল আমার গোত্র
কিন্তু তোর চেয়ে উত্তম উষ্ট্রের মূত্র

উপস্থিত সকলে: আলহাম্‌দুলিল্লাহ

কাফের নারী: তোর দল মারিয়াছে মোর পিতা, পুত্র, স্বামী
তুই কি ভাবিস, তোর সম্মুখে নত হবো আমি?

মহাবদ: ওহে, কাফের সুন্দরী
ধর্মের অবমাননা করিস না, তোর পায়ে পড়ি।
তোর বচন আমার ধর্মানুনুভূতিরে করিয়াছে উত্থান
সম্মতি দে, নিশ্চয় আমি দানিবো তোকে সর্বোচ্চ সম্মান।
অতি উষ্ণ অন্ডকোষ আমায় করে রাখে উচাটন
গনিমত না পেলে ঊর্ধ্বপোঁদ করে তাতে ছোঁয়াই সমীরণ।
হইতে যদি না চাস জাহান্নামবাসী
সাড়া দে, করবো তোকে সম্মানিত দাসী।

উপস্থিত সকলে: সুবহানাল্লাহ

কাফের নারী: আয় তবে মূর্খ রাখাল, হই তোর সাথী,
(দাঁত কেলাইয়া মহাম্মক কিঞ্চিৎ অগ্রসর হইলো)
তোর জন্য দরকার বিচিতে এক লাথি

(নবীজীর বিচি মোবারকে “গ্রন্থিতে ফুৎকার দেয়া নারীর”[iii] তুমুল পদাঘাত [iv]
নবীজী এক গোঙানি মোবারক দিয়ে মূর্ছা মোবারক গেলেন, তাঁর শরীর মোবারকে কাঁপুনি মোবারক দিয়ে জ্বর মোবারক চলে আসলো। ঘন্টাখানেক পর জাগ্রত হইয়া,)

মহাবদ: লৌকিক বেদনার ঊর্ধ্বে আমি, ধর্ম শিখিও ছহী
জানিয়া রাখো সত্য, জিব্রাইল আমার জন্য আনিয়াছিলো ওহী।

সকলে: ফাবিয়াইয়ে আলা ই রাব্বিকুমা তুকাযযিবান।

অতঃপর পরবর্তী তাহাজ্জুদ-এ আরও ভালো পিনিকের পরিকল্পনা ও সমগ্র নারী জাতির উপর লানত্‌ বর্ষণ করিয়া মাহ্‌ফিল সমাপ্ত। 

(যবনিকা)

[i] সুবহে সাদিক এর আগের মূহুর্ত

[ii] অনেকে একে আদর করে তাহাজ্জুদ নামে ডাকে

[iii] সূরা বাল ফালাক্ক দ্রষ্টব্য

[iv] এক ফাইলই যথেষ্ট