২৫ নভেম্বর, ২০১২

লুক্স লিখিত সুসমাচার - ১৩

লিখেছেন লুক্স

১১৬. 
মন্তব্যহীন কোরানের আয়াত দেখে যারা ক্ষেপে যায়, বুঝতে হবে তারা জীবনেও কোরান পড়েনি।

১১৭.
খ্রিষ্টপূর্ব ৪০০৪ সালে আদমের জন্ম থেকে আজ পর্যন্ত মানুষদের উদ্ধারের জন্য পয়গম্বর জন্মেছেন ১,২৪,০০০ জন এবং এরা সকলেই জন্মালেন আরব ভূখন্ডে। কেন শুধু আরবে? আরবেই কি শুধু পাপীদের বাস ছিল? নাকি অন্য সব দেশে মনুষ্য বসতি ছিল না? ৪০০৪ + ৫৭০ = ৪৫৭৪/১,২৪,০০০ = প্রত্যেক বছর ২৭ টা নবী!

১১৮.
গত ১৪০০ বছরে ইসলামে তলোয়ারের সাথে বোমা ও পাথর ছাড়া আর কিছুই যোগ হয় নাই।

১১৯.
আল্লাহ দাবি করেন, তিনি প্রত্যেক জাতির জন্যে একজন নবী প্রেরণ করেছেন, যাতে করে তার বাণী লোকদের নিকট সুস্পষ্ট হয়। আপনি কি বাঙালি/চায়নিজ/জাপানিজ/ভারতীয়/আমেরিকান/আফ্রিকানদের জন্যে পাঠানো নবীর ব্যাপারে কিছু জানেন? - (কোরান ১৪.৪)

১২০.
যে ব্যক্তি আল্লাহর ৯৯ টা নাম জানে, সে বেহেস্তে যাবে (Sahih Bukhari 3:50:894); আমি জানি কিন্তু যামু না।

১২১.
মুহম্মদের নির্দেশনা: অবৈধ সম্পর্কের সাজা দিতে হবে পাথর মেরে হত্যা (Sahih Bukhari 9:93:633)!
মানুষের জীবন বিধান কুরানে ব্যভিচারের সাজা থাকলেও ‘ধর্ষণ’-এর জন্যে কোনো ধরনের সাজার নির্দেশ নেই, বরং আরো উৎসাহিত করে।

১২২. 
ইসলাম খুনের বদলে খুনের কথা বলে, কিন্তু মুমিনরা গো-আযম, নিজামী বা সাইদীর মতো খুনী এবং গণহত্যার নায়কদের মুক্তির জন্য আন্দোলন করে।

১২৩.
যে মানুষটি শিশুবিবাহ, বহুবিবাহ, পুত্রবধূকে বিবাহ, দাসীভোগ, যুদ্ধবন্দী নারীদের ভোগ, গণিমতের মাল ভোগ, শিরশ্ছেদ, পাথর মেরে হত্যা সর্বোপরি নিজের লিখা কোরানকে আল্লাহর নামে চালিয়ে দিয়েছে, তার নামের পর দরুদ পড়বে তার অন্ধ ভক্তরা; ইসলামের ইতিহাস জানা কেউ নয়।

১২৪.
যে মানুষগুলো পৃথিবীর কোনো ভাষাতেই লিখতে-পড়তে জানে না, তারা যখন দাবি করে কোরানে কোনো ভুল নেই, তখনই আমি সবচেয়ে বিপদে পড়ে যাই। 

১২৫.
কোরানের ভাষায় যাকে জিহাদ বলা হয়, সভ্য মানুষের কাছে তা সন্ত্রাসবাদ।